বাঁশখালীতে সড়ক দুর্ঘটনা রোধে জনপ্রতিনিধি ও প্রশাসন এগিয়ে আসুন: আইএবি চট্টগ্রাম দক্ষিণ

বার্তাকক্ষবার্তাকক্ষ
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৩:২৮ PM, ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১

বাঁশখালী পিএবি রোড়ে প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনা ঘটছে। এই রাস্তা দিয়ে পেকুয়া,কুতুবদিয়া, সাতকানিয়া, মহেশখালীসহ বিভিন্ন অঞ্চলের মানুষের যাতায়াত। সম্প্রতি ব্যাপকহারে দুর্ঘটনা নিয়ে উদ্ধেগ প্রকাশ করেছেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা নেতৃবৃন্দ।আজ ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১ সংগঠনের সভাপতি মাওলানা মুজাহিদ ছগির আহমদ চৌধুরী এবং সেক্রেটারি আলহাজ্ব হাফেজ মাওলানা রুহুল্লাহ তালুকদার এক যৌথ বিবৃতিতে এই উদ্বেগ প্রকাশ করেন।

নেতৃবৃন্দ বলেন,বাঁশখালী রাস্তার সম্প্রসারণ না করে সংকীর্ণ রাস্তায় এস আলম ও সান লাইন পরিবহণ এর মত বড় বড় বাস চলাচলের কারণে প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনা ঘটছে। এছাড়াও অদক্ষ ড্রাইবার,ফিটনেসবিহীন গাড়ির কারণে দুর্ঘটনার হার বাড়ছে।প্রতিদিন দুই- চারটা দুর্ঘটনা ঘটছে।এতে ঝরে যাচ্ছে বহু তাজা প্রাণ।এমন পরিস্থিতিতেও বাঁশখালীর জনপ্রতিনিধি এবং প্রশাসনের নীরবতা আমাদের অবাক করেছে।প্রতিদিন দুর্ঘটনা ঘটলেও জনপ্রতিনিধিদের কোন ভূমিকা দেখা যাচ্ছেনা। দুর্ঘটনা রোধে জনপ্রতিনিধি এবং প্রশাসনকে এগিয়ে আসার আহবান জানিয়েছেন নেতৃবৃন্দ।

যত্রতত্র গাড়ি পার্কি, যাত্রী উঠা নামানো কোনভাবেই বন্ধ হচ্ছেনা।অদক্ষ এবং লাইসেন্স বিহীন ড্রাইবারদের কারণেও দুর্ঘটনা ঘটছে বলেও দাবি এই দুই নেতার।।দুর্ঘটনা রোধে রাস্তার সম্প্রসারণ, ফিটনেস বিহীন যান চলাচল বন্ধ,অদক্ষ ও লাইসেন্স বিহীন ড্রাইবার নিষিদ্ধ,রাস্তার দুই পাশে পথচারী চলাচলের জন্য ফুটপাতের ব্যবস্থা করা, চাঁদপুর,গুনাগারি এবং জলদিসহ বিভিন্ন বাজারে জন দুর্ভোগ লাঘব এবং দুর্ঘটনা রোধে ফুট ওভার ব্রীজ নির্মাণ এবং রাস্তা সম্প্রাসারণ না হওয়া পর্যন্ত এস আলম এবং সান লাইন পরিবহণ চলাচল বন্ধ রাখার দাবি জানিয়েছে ইসলামী আন্দোলনের বাংলাদেশ এর এই নেতারা।

আপনার মতামত লিখুন :