আমি আপনাদের সেবায় সবসময় নিয়োজিত থাকবো

বার্তাকক্ষবার্তাকক্ষ
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৫:০৪ PM, ০৮ মার্চ ২০২১

মোঃ মনিরুল ইসলাম, কুতুবদিয়া:

কক্সবাজারের কুতুবদিয়া উপজেলায় ৬টি ইউনিয়নের ইউপি নির্বাচন কে নিয়ে সম্ভাব্য প্রার্থীগণ মাঠে জনগণের আস্থা অর্জনের জন্য বিভিন্ন কৌশল বিনিময় করে যাচ্ছেন। তাদের মধ্যে পিছিয়ে নেই সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে সম্ভাব্য প্রার্থীরাও। সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে সম্ভাব্য প্রার্থীদের মধ্যে দক্ষিণ ধূরুং ইউনিয়ন আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল আলম সিকদারের সহধর্মিণী, কুতুবদিয়ার স্বনামধন্য রাজনৈতিক পরিবারের পুত্রবধু, উপজেলা মহিলা আ’লীগের সহ-সভাপতি, বর্তমান দক্ষিণ ধুরুং ইউনিয়ন পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান ও সফল সংরক্ষিত মহিলা সদস্য, শাহিনুর আক্তার শাহীন কে আবারও ৭,৮,৯ নং ওয়ার্ডের মহিলা মেম্বার হিসেবে দেখতে চান নির্বাচনী এলাকার স্থানীয় জনসাধারণ। তিনি মহিলা সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পর এলাকায় গরীব দুঃখী মেহনতী মানুষের পাশে এবং রাস্তার উন্নয়নসহ বিভিন্ন সামাজিক কাজে জড়িত থাকায় পুনরায় মেম্বার পদে নির্বাচিত করতে চান এলাকার সর্বস্তরের জনসাধারণ।

সংরক্ষিত মহিলা সদস্য, শাহিনুর আক্তার শাহীনের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, শুকরিয়া আদায় করি সেই মহান রাব্বুল আলামীনের কাছে, যিনি আমাকে দেশ ও জনগণের সেবা করার সুযোগ করে দিয়েছেন। আমার জানামতে আমি কখনো কারো সাথে অশ্লীল ভাষা ব্যাবহার করিনি। হয়তোবা সবাইকে ত্রাণ দেওয়ার মতো সুযোগ আমার ছিল না। এরপরও বলবো তুলনামূলক ভাবে আমি প্রায় আমার এলাকায় গরীব দুঃখী মানুষ কে সহযোগীতা করেছি। আমি কাউকে টাকার বিনিময়ে কোন কিছু করিনি। আমার কাছে কেউ কোন রকম সহযোগিতার জন্যে আসলে আমি তাকে খালি হাতে ফিরিয়ে দি নাই। আমি এবং আমার স্বামী দুজনেই নিঃস্বার্থে জনগণের সেবায় নিয়োজিত ছিলাম। আমার আশা ও বিশ্বাস আপনারা আমাকে গত নির্বাচনে বিপুল ভোটের মাধ্যমে জয়ী করেছেন। এবারও আমাকে জনগণ সেবা করার সুযোগ দিবেন। গতবার যারা আমার প্রতিদন্ধি ছিল, এদের কেও আমি বিভিন্ন ভাবে সহযোগিতা করেছি। আগামী ১১ ই এপ্রিলের নির্বাচন কে সামনে রেখে আমি জনগণের সেবিকা হিসেবে আবার নির্বাচন করার জন্য সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

আমি আমার নির্বাচনী এলাকায় বিভিন্ন উন্নয়নের কাজ করেছি। সেগুলো হচ্ছে – আমি ৭ নং ওয়ার্ডে পুর্ব ধুরুং কাঁচা সড়ক টি একদম মাটির সাথে মিশে গিয়েছিল, তা আমি আমার স্বামীর মাধ্যমে মাননীয় সাংসদ আলহাজ্ব আশেক উল্লাহ রফিক থেকে বরাদ্দ নিয়ে মাটি দিয়ে মেরামত করে দিয়েছি। সেই এলাকার লোকজন বর্ষা মৌসুমে শুকনো জায়গা দিয়ে হাঁটাচলা করার সুযোগ পেয়েছে। রাজাখালী থেকে আসা সড়ক সংলগ্ন নাছির উদ্দীন হায়দার এর বাড়ির পুর্ব প্বার্শে গাইড ওয়াল নির্মান, পূর্ব ধুরং কাচা মসজিদে সোলার প্যানেল স্থাপন, ধুরুং বাজার সংলগ্ন, ধুরুং আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় মসজিদে সোলার প্যানেল স্থাপন করে দিয়েছি।

৮ নং ওয়ার্ডে ধুরুং আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ে আপনার আমার সন্তান ছাত্র ছাত্রীদের সুবিধার্থে টয়লেট নির্মাণ, জেলে পাড়ায় হরি মন্দির, মাননীয় সাংসদ আলহাজ্ব আশেক উল্লাহ রফিকের মাধ্যমে ইট দ্বারা সংস্থার, জেলে পাড়ায় নাছ খানার জন্য মাননীয় সাংসদ আলহাজ্ব আশেক উল্লাহ রফিকের বরাদ্দকৃত অনুদানের মাধ্যমে সংস্থার, জেলে পাড়ায় নাছ খানার জন্য ৫০০০০/- পঞ্চাশ হাজার টাকার অনুদান, নুরার পাড়া জামে মসজিদে মাননীয় সাংসদ আলহাজ্ব আশেক উল্লাহ রফিকের বরাদ্দকৃত অনুদানের মাধ্যমে সোলার প্যানেল স্থাপন করে দিয়েছি।

৯ নং ওয়ার্ডে শুকলাল পাড়া কমিউনিটি ক্লিনিকে রোগীদের সেবার মান উন্নত করার লক্ষ্যে সোলার প্যানেল স্থাপন, নুরার পাড়ার কবরস্থান সংলগ্ন রাস্তা ইট দ্বারা সংস্থার, মাননীয় সাংসদ আলহাজ্ব আশেক উল্লাহ রফিকের বরাদ্দকৃত অনুদানের মাধ্যমে কবরস্থানে বাউন্ডারি ওয়াল নির্মাণ এবং কবরস্থানের গেইট নির্মাণ করে দিয়েছি। “আমি কথায় নয়, কাজে বিশ্বাসী”।

তিনি আরো বলেন- আমি দীর্ঘ পাঁচ বছর জনগণের সেবায় খাদেম হিসেবে নিয়োজিত ছিলাম। আমার জানামতে আমি জনগণের সাথে কখনো খারাপ আচরণ করিনি। কারো কোন রকম ক্ষতি করিনি। যতটুকু পেরেছি অসহায়, গরীব-দুঃখী মানুষ কে সাহায্য সহযোগিতা করেছি। জনগণও আমাকে আন্তরিক ভাবে সহযোগিতা করেছেন। আমার আশা ও বিশ্বাস জনগণ এবারও তাদের মুল্যবান ভোটদিয়ে আমাকে সহযোগিতা করবেন। সকলের দোয়ায় আমি আবারও নির্বাচন করবো। নির্বাচন করার অধিকার সবার আছে। যোগ্য লোক যাচাই করার সিদ্ধান্ত নিবে জনগন। জনগণ যাকে চাইবে সে নির্বাচিত হবে। তিনি জনগণের উদ্দেশ্যে বলেন, আমি আপনাদের সেবায় সবসময় নিয়োজিত থাকবো, ইনশাআল্লাহ।

আপনার মতামত লিখুন :