হেফাজতে ইসলাম নিয়ে পাঁচটি পরামর্শ

বার্তাকক্ষবার্তাকক্ষ
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০১:২৭ PM, ০৬ এপ্রিল ২০২১

চলমান ইস্যুটা হেফাজতে ইসলামের ২৫ শহীদ এর বিচার ধামাপাচা দিয়েছে।মামুনুল হক ইস্যুতে সবাই সরব। সুবর্ণজয়ন্তী কে কেন্দ্র করে পুলিশের গুলিতে শহীদ হওয়া ভাইদের বিষয়ে হেফাজতে ইসলাম নিরব।কেন শুধু একটা ইস্যু নিয়ে পড়ে আছেন? সরকার যেমন শহিদদের বিচার আড়ালে রাখতে নতুন ইস্যু তথা নতুন নাটকের সূচনা করলেন তখন আপনারাও কেন নিহত, আহত ভাইদের বিচারের দাবিকে জোরালোভাবে উপস্থাপন করতে পারছেন না? সরকার যেমন আরেকটি নতুন ইস্যু সৃষ্টি করে আহত, নিহতদের বিচার দাবি থেকে জনগনের দৃষ্টি অন্যদিকে ফিরিয়েছে,আপনারাও তো পারতেন জনগনের দৃষ্টি শহিদদের বিচার দাবির দিকে নিয়ে যেতে।

হেফাজতে ইসলাম ব্যক্তি মামুনুল হক নিয়ে পড়ে আছে।হাইকমান্ড থেকে শহিদদের বিচার দাবিতে জোরালো কোন বক্তব্য আসছেনা।ষড়যন্ত্রকারীদের পাল্টা জবাব দিতে শিখুন।পাল্টা জবাব হতে হবে বুদ্ধিভিত্তিক।পুরো বিশ্বে চলছে চিন্তা যুদ্ধের খেলা।মানুষের দৃষ্টি হোফাজতের আন্দোলন থেকে ফেরাতে সরকার যদি নতুন ইস্যু সৃষ্টি করতে পারে তাহলে আপনারা কেন পূর্বের ইস্যুকে হাইলাইট করতে পারছেন না? এটা কি হেফাজতে ইসলামের ব্যর্থনা নয়? অনেকে খারাপ চোখে দেখতে পারেন আমার লেখনি।তবে সত্যটা বলতেই হবে।ব্যক্তি মামুনুল হক ইস্যু থেকে জনগনের দৃষ্টি ফেরাতে এখনই উচিত শহিদদের বিচার দাবি জোরালো করা।

হেফাজতে ইসলাম একটি সর্ববৃহৎ ঐক্যের প্লার্টফরম। তবে এখানে দূরদর্শীতার বড্ড অভাব।গরম বক্তব্য দিয়ে জনতাকে উত্তেজিত করা যতটা সহজ কিন্তু নিয়ন্ত্রণে রাখা ততটা কঠিন।মামুনুল হক সাহেব এর দ্বিতীয় স্ত্রী নিয়ে পড়ে থাকার মানে হয়না।এই ইস্যুটা সমাপ্তি দিন।হাইকমান্ড এক সাথে বসে কর্মপন্থা ঠিক করুন।প্রয়োজনে হেফাজতে নেই এমন আলেম ওলামদের থেকে পরামর্শ নিন।আপতত মামুনুল হক সাহেব কে
বিশ্রামে রাখুন। এই মূহুর্তে হেফাজতে ইসলাম যা করতে পারে–

১) কওমী অঙ্গনের রাজনৈতিক, অরাজনৈতিক শীর্ষ আলেমদের নিয়ে জরুরি বৈঠকে বসুন।
২) সামগ্রিক বিষয়াদি বিচার বিবেচনা করে জরুরি সংবাদ সম্মেলন করুন।
৩) সংবাদ সম্মেলন থেকে শহীদদের বিচার দাবি এবং শহীদদের পরিবারের জন্য ক্ষতিপূরণ দাবি করুন।
৪) সহিংসতায় জড়িত সরকার দলীয় নেতা কর্মীদের শাস্তির জোরালো দাবি তুলুন।
৫) যেসব পুলিশ নির্বিচারে গুলি করে মাদরাসার শিক্ষার্থীদের শহিদ করেছে তাদের চাকরিচ্যুত করে আইনের আওয়াতায় নিয়ে আসার জোরালে দাবি তুলুন।

লেখকঃনুর আহমেদ সিদ্দিকী

আপনার মতামত লিখুন :