রমাদান ও নববর্ষের নতুন আহবান |নুর আহমেদ সিদ্দিকী

বার্তাকক্ষবার্তাকক্ষ
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০১:৫২ PM, ১৫ এপ্রিল ২০২১

প্রকৃতি সেজেছে নতুন সাজে।খতমে তারাবীহ নামাজ আদায় করে রাজাধিরাজ মহান রবের কাছে কায়মানো বাক্যে প্রার্থনা করেছি যাতে নতুন বছরে সবার জীবনে বয়ে আনে সুখ, শান্তি,সমৃদ্ধি ও অনাবিল আনন্দ।আজ চারদিকে সবুজের সমারোহ বিরাজমান। চারদিকে নতুন রূপে প্রকৃতি আজ নতুন কিছু বলতে চায়।জীবনের সব গ্লানি ভুলে গিয়ে অতীতের ভুল থেকে শিক্ষা নিয়ে নতুন করে বাঁচতে উদ্যোগী হওয়ায় নববর্ষের শিক্ষা।ঘোর অমানিশা পেরিয়ে পূর্বদিগন্তে রক্তিম সূর্য উদিত হওয়ার মধ্য দিয়ে নতুন বছরের নতুন দিনের যাত্রা।বাংলা নববর্ষ আর সিয়াম একই ক্ষণে এসেছে।

চারদিকে পাখির কলরব।তাদের ভাষায় তারা রবের প্রার্থনাতে মশগুল। পাখির কিচিরমিচির শব্দে হৃদয়ে নতুন অনুভূতির জন্ম দেয়।রাতের সুনসান নীরতা আর নিস্তব্ধতা কে বিদায় জানিয়ে পাখির কলকাকলিতে মুখরিত হবে পরিবেশ।

বৃক্ষ গুলো সবুজে আবৃত।গাছের ডালে ডালে পাখির নৃত্য।নিকুঞ্জ গুলো গাছগাছালি কে জড়িয়ে ধরেছে পরম মমতায়।হৃদয় ছুঁয়ে যায় সবুজের হাতছানি। অশেষ অনুভবে বাংলার ঋতু বৈচিত্রে হৃদয় নতুন করে আন্দোলিত হয়।দক্ষিণা সমীরে হৃদয় পুলকিত আজ।ক্ষীয়মান কুহেলি। বিশ্ব জাহান যিনি সৃজিয়েছে তাঁর অপার করুণায় আমরা বেঁচে আছি।তিনি মহান কারিগর।তাঁর সুনিপুণ সৃষ্টি আমাদের চক্ষু শীতল করে।তার সৃষ্টি নিয়ে গবেষণা করাও ইবাদত। পল্লব অক্ষরের ফাঁকেফাঁকে রক্তিম সূর্যের দেখা মিলে।লিখতে মন চায় অাখ্যানলিপি। কিন্তু বিধাতার সৃজন দেখে সেই অাখ্যানলিপি লিখতে অক্ষম হয়ে গেলাম।আজ আমি বাণীশূণ্য।যেন নির্বাক কাজী নজরুল।আজ প্রকৃতি কথা বলছে আপন মনে।লীলানৃত্যে দেখা যায় সবুজ পানে।চিহৃহীন প্রান্তরে প্রান্তরে ঘুরেফিরে মন।চারদিক রঞ্জিত হলো নতুন রঙে।এই রঙ আল্লাহ তায়ালার অশেষ কৃপা।

আজ প্রকৃতি দুরন্ত চঞ্চল।নিঃসাড় মানবতাকে জাগিয়ে তুলে নতুন উদ্যমে,নতুন অাশায়।প্রকৃতির এই রূপসজ্জার পশ্চাতে কার হস্ত রয়েছে তা সহজেই অনুমেয়। প্রকৃতির সবুজ অরণ্যে রয়েছে অমৃত রস।আজ যেন প্রকৃতির জয়জয়কার। নিরালায় কাঁদে অমানিশা।অবিরাম চলছে পাখির গান।পাখির কণ্ঠে লেগেছে মিষ্টি সুর।দিগন্ত জুড়ে আজ সবুজের অালিঙ্গন। সমুদ্রে ঢেউয়ের নৃত্যে আনন্দে ভরে যায় মন।এসব কার সৃজন? সহজ উত্তরে বলতে হয় তিনিই হলেন রাজাধিরাজ মহান আল্লাহ।যার অফুরন্ত দয়ায় আমরা বেঁচে আছি প্রাণীকুল। শুকনো পাতার ঝিরঝির শব্দ কানে বাজছে। বাংলার পরতে পরতে সবুজের হাতছানি। মনের অগোচরে শোনা যায় প্রকৃতির আহবান। অকৃত্রিম এই সৌন্দর্যে হৃদয় নেচে উঠে পরম আনন্দে।আজ প্রকৃতির এমন দৃশ্যে মুগ্ধতা একরাশ।পল্লীর অলিগলিতে সবুজের মেলা বসেছে।

দূর নীলিমায় ছুটে চলছে সফেদ বকের সারি।অাসমানে কে যেন নীলের হাঁট বসিয়েছে।সূর্যের কিরণে সবুজ কচি পাতা গুলো চিকচিক করছে।সেজেছে নতুন রঙে।নন্দিনীর চোখে মুখে নতুন স্বপ্ন।নতুন অালোয় উদ্ভাসিত হোক ধরণী সেই প্রত্যাশায়। তৃপ্তি আজই পাখির কণ্ঠে।নিশীথে পাখির চোখে ঘুম ছিল না।নতুন বর্ষে নতুন গানের স্বপ্ন বুনতে গিয়ে।চারদিকে নতুন রূপের অাহূতি।এই যেন রূপের কবিতা অাবৃত্তি।প্রকৃতির প্রান্তে প্রান্তে যেন সবুজের গালিচা।পাখির লুকোচুরি খেলা উদাস মনকেও নাড়া দেয়।প্রকৃতি আজ আমাদের শিক্ষা দেয় পরার্থের।সুখের পায়রা ফের নেমে আসুক মৃত্তিকার এই ধরণীতে সেই কামনায়।রহমত,মাগফিরাত আর নাজাতের সুমহান বার্তা নিয়ে আমাদের দরজায় এসে দাঁড়িয়েছে মহা পবিত্র মাস রমজান।পাপ পঙ্কিলতার অতল গহ্বরে হারিয়ে যাওয়া বনি আদম মুক্তি ও পরিত্রাণের প্রত্যাশায় রবের চরণে লুটিয়ে পড়বে।

লেখকঃনুর আহমেদ সিদ্দিকী

আপনার মতামত লিখুন :