পীর সাহেব চরমোনাই এ জাতির দরদী নেতা

বার্তাকক্ষবার্তাকক্ষ
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ১১:২০ PM, ৩০ মে ২০২১

তিনি জাতির দক্ষ রাহাবার।বলছি ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর আমির মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করিম পীর সাহেব চরমোনাইর কথা।বার বার তিনি অভিভাবকের পরিচয় দিচ্ছেন।আজ ঢাকার দলীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলন থেকে গ্রেপ্তারকৃত আলেম ওলামাদের মুক্তি চেয়েছেন। পাসপোর্ট থেকে একস্পেট শব্দ ফের সংযুক্তকরণ,শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া,আসন্ন জাতীয় বাজেট, এবং আলেম ওলামাদের মুক্তির দাবিতে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে দেওয়া লিখিত বক্তব্য ছিল অত্যন্ত চমৎকার।

ইসরাইলি বর্বরতার বিরুদ্ধে পবিত্র ঈদুল ফিতরের দিন ঢাকায় স্মরণকালের সর্ববৃহৎ বিক্ষোভ মিছিল করেছে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ।আজ যে ইস্যু নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছে তা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

বাংলাদেশে ইসলামী রাজনৈতিক দলগুলো যখন নীরব দর্শকের ভূমিকায় ঠিক সেই মূহুর্তে অভিভাবকের ভূমিকা পালন করছে পীর সাহেব চরমোনাই।তিনি নীরহ আলেম ওলামাদের মুক্তির দাবিতে শুরু থেকেই সরব ছিলেন।অথচ গ্রেপ্তার হওয়া বিভিন্ন ইসলামী দল এবং হেফাজতে ইসলাম নেতাদের মুক্তির দাবিতে কোন মিছিল মিটিং প্রতিবাদ করেনি। সংবাদ সম্মেলন করে নেতাদের মুক্তির দাবিও উঠাতে পারেনি।সেখানে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ সংবাদ সম্মেলন করে আলেমদের মুক্তির চেয়ে ফের উদারতার পরিচয় দিয়েছে।আর পীর সাহেব চরমোনাই একজন যোগ্য অভিভাবকের পরিচয় দিয়েছে।

আজকের সংবাদ সম্মেলনে পীর সাহেব চরমোনাই কালবিলম্ব না করে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার আহবান করেছেন।এইজন্যে ২ জুন জাতীয় প্রেসক্লাবে সামনে মানববন্ধন এবং ৩ জুন দেশ ব্যাপি জেলা ও মহানগরে মানববন্ধনের ঘোষা দিয়েছেন।শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দিতে পীর সাহেব চরমোনাইর দেওয়া বক্তব্য ছিল অত্যন্ত চমৎকার এবং যৌক্তিক।এই সময়ে দেশের আলোচিত সংগঠন হিসেবে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর ভূমিকা প্রশংসার দাবি রাখে।সব রাজনৈতিক দল যদি সোচ্চার হয় তাহলে সরকার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দিতে বাধ্য হবে।তবে রাজনীতিতে আন্দোলন সংগ্রামে সবার আগে রাজপথে নামছে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ।এমন ইস্যুতে বিএনপি জামায়াত কঠিন আন্দোলন গড়ে তুলতে পারে। অথচ তারা আজ নিরব।শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের দেশের লাখ লাখ মানুষের কর্মসংস্থান জড়িত।তাই দ্রুত সময়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দিতে সরকারের প্রতি আহবান জানান। অন্যথায় দেশপ্রেমিক ছাত্র,শিক্ষক এবং অভিভাবকদের নিয়ে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তোলার ঘোষণা দেন পীর সাহেব চরমোনাই।

সংবাদ সম্মেলনের লিখিত বক্তব্য বিন্দুর মধ্যে সিন্দুর খোঁজ মিলেছে।সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে দেশের বর্তমান সামগ্রী বিষয় স্পষ্ট এবং চমৎকারভাবে ফুটে উঠেছে।ফুটে উঠেছে শিক্ষাখাত,স্বাস্থ্যখাতের দুর্নীতি,অসঙ্গতি।ভ্যাকসিন নিয়ে তৈরি হওয়া অনিশ্চয়তা, অতি ভারত নির্ভরতা,নতজানু পররাষ্ট্রনীতিসহ গুরুত্বপূর্ণ বিষয় গুলো সহজ,সরল ও প্রাঞ্জল ভাষায় সংক্ষিপ্তভাবে ফুটে উঠেছে।সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তর খুব চমৎকারভাবে দিয়েছেন।সাংবাদিকরা বার বার পীর সাহেব চরমোনাইকে বিব্রত করতে মামুনুল হকের সোনারগাঁও ঘটনা তুলে ধরতে চেয়েছে।বার বার প্রশ্ন করছে,আপনি কি মামুনুল হকের মুক্তি চান? পীর সাহেব চরমোনাই বললেন,আমি সকল আলেম ওলামাদের মুক্তি চাই।যারা নিরপরাধ, মিথ্যা ও ষড়যন্ত্রমূলক মামলায় গ্রেপ্তার তিনি যেই হোক তার মুক্তি চাই।সাংবাদিকরা চেয়েছিল পীর সাহেব চরমোনাইকে বিভিন্ন প্রশ্ন করে বিব্রত করতে।কিন্তু পীর সাহেব চরমোনাইর মত গভীর জলের মাছ তথা ঝানু রাজনীতিকের কাছে তারা টিকতে পারেনি।হেফাজতের কর্মকান্ডসহ বিভিন্ন প্রশ্নে পীর সাহেব চরমোনাই যেভাবে শান্তভাবে এবং ফুরফুরে মেজাজ নিয়ে উত্তর দিয়েছেন তা সত্যিই প্রশংসার দাবি রাখে।পাসপোর্ট থেকে ইসরাইল একসেপ্ট শব্দটি বাদ দেওয়ায় তীব্র প্রতিবাদ জানান তিনি।এর সুষ্টু তদন্ত দাবি করেন।সাথে সাথে শব্দটি ফের সংযোজনের দাবিতে ৫ জুন ঢাকায় বিক্ষোভ মিছিলের ঘোষণা দেন পীর সাহেব চরমোনাই।

অন্যান্য ইসলামী আন্দোলন ও পীর সাহেব চরমোনাইর সাথে বিমাতা সূলভ আচরণ করলেও তিনি সবার প্রতি উদারতা দেখান।অনেকে ইসলামী আন্দোলনের বিপদেও বিমাতা সূলভ আচরণ করেছে।কিন্তু ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ রাজনীতিতে অভিভাবকের ভূমিকায় অবতীর্ণ। তাই ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ছোটখাট মতবিরোধ ভুলে গ্রেপ্তারকৃত আলেম,ওলামা রাজনৈতিক নেতাদের পক্ষে বললেন।সংবাদ সম্মেলন করে তাদের মুক্তি চাইলেন।শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার দাবিতে ইশা ছাত্র আন্দোলনের ভূমিকা সত্যিই প্রশংসার দাবি রাখে।২৭ মে ঢাকায় বিশাল বিক্ষোভ মিছিল থেকে সপ্তাহ ব্যাপি দেশব্যাপি কর্মসূচি ঘোষণা দেন।আজ সারা দেশে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সামনে মানববন্ধন করেছে।এরপর জেলা জেলায় ও থানা থানায় বিক্ষোভ মিছিল করবে ইশা ছাত্র আন্দোলন।যদি জেলা প্রশাসক ও ইএনো বরাবর স্বারকলিপি দেওয়ার পরও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান না খুলে তাহলে ১০ জুনের পরে শিক্ষামন্ত্রণালয় ঘেরাও করার ঘোষণা দিয়েছে ইশা ছাত্র আন্দোলন।পরিসমাপ্তিতে বলতে হয়,পীর সাহেব চরমোনাই এ জাতির দরদী নেতা

লেখক ঃনুর আহমেদ সিদ্দিকী

আপনার মতামত লিখুন :