নির্বাচনী ফলাফলকে কেন্দ্র করে দুই প্রার্থীর লোকদের মধ্যে সংঘর্ষ, আহত ১০

বার্তাকক্ষবার্তাকক্ষ
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৩:২৮ PM, ২৯ নভেম্বর ২০২১

রামগঞ্জ প্রতিনিধি:
নির্বাচনী ফলাফলকে কেন্দ্র করে দুই প্রার্থীর লোকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে আহত হন ১০ জন। ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার (২৯ নভেম্বর) সকাল ৭ টায় লক্ষ্মীপুর রামগঞ্জ উপজেলার ১নং কাঞ্চনপুর ইউনিয়নের ৭নং কাওয়ালীডাঙ্গা শাহজাহানের দোকানের সামনে।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গতকাল (২৮ নভেম্বর) রবিবার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে কাওয়ালীডাঙ্গা ওয়ার্ড থেকে বিজয়ী ঘোষণা করেন সাবেক মেম্বার (টিউবওয়েল মার্কা) প্রতীকের প্রার্থী তৌহিদুল ইসলামকে। এর পর প্রতিদ্বন্দ্বী (মোরগ মার্কা) প্রতীকের প্রার্থী আবদুল আজিজ নির্বাচনের ফলাফল মিথ্যে ও একতরফা বলে আখ্যায়িত করেন। পরে সেখানে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। সেটাকে কেন্দ্র করে সোমবার (২৯ নভেম্বর) সকালে ৭ টায় শাহজাহানের দোকানের সামনে দুই প্রার্থীর লোকদের মধ্যে ব্যাপক উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। এবং বেশ কয়েকজন আহত হন।
তৌহিদুল ইসলাম বলেন, আমি কোনো জামেলা করতে চাইনি। আমি আমার লোকজন সহ দোকানে চা খাচ্ছি। এমন মুহূর্তে আব্দুল আজিজ এসে আমাকে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। আমার লোকজন জিজ্ঞাসা করলে জবুল হক, ফয়েজ হোসেন, নুর হোসেন, মোঃ সবুজ, মোঃ ইব্রাহীম, মোঃ ফিরোজ সহ তাদেরকে এলোপাতাড়ি মারধর করে। আমি সমাধান করতে গিয়ে নিজেই মার খেয়েছি। আমাদের অনেকজন মেরে রক্তাক্ত করেছে ওরা। আমি আমার লোকজনকে রামগঞ্জ সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করি, পরে থানায় মামলা করি।
আব্দুল আজিজ বলেন, আমি সকালে বাড়ির সামনে আসলে আমাকে আবু তাহের নামের এক রিক্সা চালক আমাকে তার রিক্সায় উঠতে বলে। না উঠাতে আমাকে ধাক্কা দেয়, আমি মাটিতে পড়ে যাই। এবং মেম্বার সহ তার লোকজন আমাকে মারধর করেন। আমার উদ্ধার করতে এসে আপনার ভাই আরিফ সহ কাদের, শিপন, রুবেল, নাসির, রবিউল, সাহাদাত, মমিন সহ আরো অনেককে হামলা চালায়। আমি মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছি।
রামগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আনোয়ার হোসেনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এখনো থানায় অভিযোগ বা মামলা হয়নি। হলে আমরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব।

আপনার মতামত লিখুন :