রামগঞ্জে অগ্নিকাণ্ডে বসতঘর পুড়ে ছাই, ১০ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি

মোঃ মুজাম্মেল হোসেন মল্লিকমোঃ মুজাম্মেল হোসেন মল্লিক
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৩:২৪ PM, ১৬ মার্চ ২০২২

পারভেজ হোসাইন, রামগঞ্জ: লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জ পৌর সোনাপুর ১নং ওয়ার্ড কালু মিয়ার বাড়ির মোঃ ঈমান হোসেনের বসতঘরে আগুন লেগে সব পুড়ে ছাই হয়ে যায়। এতে প্রায় ১০ থেকে ১৫ লাখের মতো ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন মোঃ ঈমান হোসেন ও তার স্ত্রী কাজল বেগম।

মঙ্গলবার, (১৫ মার্চ) রাত আনুমানিক ০৯ টায় এই আগুনের সূত্রপাত ঘটেছে। তবে কিসের থেকে এই আগুনের সূত্রপাত সেটা জানা যায়নি। স্থানীয়রা বলছেন, বিদ্যুতের শর্ট সার্কিট থেকেই আগুনের এই সূত্রপাত ঘটতে পারে।

স্থানীয়রা জানান, মঙ্গলবার ইশার নামাজের পর আনুমানিক ০৯ টায় হঠাৎ কালু বাড়ি সংলগ্ন রাস্তার পাশে ঈমানের ঘরে আগুন জ্বলছে। পরে স্থানীয় আগুন নেভাতে চেষ্টা করেন। ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা আসতে আসতেই ঘরের প্রায় ৯০ শতাংশই পুড়ে ছাই হয়ে যায়। তবে আগুন নেভাতে সক্ষম হয়েছেন ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা।

ঘরের মালিক মোঃ রাজন বলেন, আমি এই ঘরে থাকতাম না, ঈমানের কাছে ভাড়া ছিল। ঘরে আমারও কিছু আসবাবপত্র ছিল সেগুলো পুড়ে ছাই হয়ে।

ঘরে ভাড়া থাকা ঈমান হোসেন জানান, আমার পাশের কলচমা গ্রামের পাটোয়ারী বাড়ি। আমি এই ঘরে অনেকদিন থেকে বাসা ভাড়া থাকি। আমার স্ত্রী পাশের ঘরে ছেলেকে পড়াতে নিয়ে যান, আমি ইশার নামাজ পড়তে বের হই, ১৫,২০ মিনিটের মধ্যেই শুনি ঘরে আগুন। থাকার জন্য নতুন ঘর করতে নগদ অর্থ, স্বর্ণ গয়না ও ঘরের আসবাবপত্র সহ সব পুড়ে ছাই হয়ে যায়। এখন আমরা পুরোপুরি নিঃস্ব। ছেলে মেয়ে স্ত্রীকে নিয়ে এখন কোথায় থাকবো, কিভাবে থাকবো।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স রামগঞ্জ শাখার ইনচার্জ কামরুল হাসান জানান, আমরা ফোন পেয়েই স্থানে ছুটে যাই, আগুন নেভাতে সক্ষম হই।

এব্যাপারে স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর ফয়সাল মাল, কলচমা ওয়ার্ড কাউন্সিলর মনির হোসেন ও গণ্যমান্য ব্যক্তিরা এই অসহায় পরিবারের পাশে দাঁড়ানোর আশ্বাস দেন।

আপনার মতামত লিখুন :