ফরিদগঞ্জে মাদ্রাসা ছাত্রীকে ইভটিজিং, তিন জন আটক 

মোঃ মুজাম্মেল হোসেন মল্লিকমোঃ মুজাম্মেল হোসেন মল্লিক
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৮:১৬ PM, ২৭ মার্চ ২০২২

মোঃ মুজাম্মেল হোসেন মল্লিকঃ চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জে দশম শ্রেণির শিক্ষার্থীকে ইভটিজিং, শ্লীলতাহানী অভিযোগ অভিযুক্ত মোঃ ফয়সাল (২২), মোঃ মারুফ হোসেন (১৮) ও রবিন (১৮) নামের ৩ জনকে আটক করে থানা পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছে জনতা। উপজেলার ৮ নং পাইকপাড়া দক্ষিণ ইউনিয়নের গ্রামীণবাজার এলাকায় ঘটনাটি ঘটেছে ।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ইভটিজিং এর শিকার শিক্ষার্থী রামদাসেরবাগ সিনিয়র আলিম মাদ্রাসায় দশম শ্রেণিতে অধ্যয়ন করছেন। এবং জনতার সহায়তায় অভিযুক্তদের পুলিশি হেফাজতে দিয়েছে মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ। স্থানীয় আরিফ হোসেন, সজিব হোসেনসহ প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, ওই ইউনিয়নের গ্রামীনবাজার এলাকায় ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী ইভটিজিংয়ের শিকার হন। এ সময় শিক্ষার্থীরা প্রতিবাদ করলে বখাটেরা প্রথমে শিক্ষার্থীকে শ্লীলতাহানী করে। পরে তাকে পিটিয়ে রাস্তার ওপর ফেলে রাখে। এবং শিক্ষার্থীর ডাকচিৎকারে প্রত্যক্ষদর্শীরা শিক্ষার্থীকে উদ্ধার ও বখাটেদের আটক করে।

খবর পেয়ে, সংশ্লিষ্ট মাদরাসার অধ্যক্ষ মিজানুর রহামন, ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্য আতিক খানসহ কয়েকজন শিক্ষক ঘটনাস্থলে  ছুটে যান। এবং তারা শিক্ষার্থী ও বখাটেদের মাদরাসায় নিয়ে যান এবং ফরিদগঞ্জ থানা পুলিশে খবর পাঠান। পরে এস.আই. রুবেল ফরায়েজিসহ সঙ্গীয় ফোর্স মাদরাসায় উপস্থিত হয়ে ভূক্তভোগী শিক্ষার্থী ও প্রত্যক্ষদর্শীদের অভিযোগ শোনেন। এ সময়ে, অভিযুক্তরা অপরাধ স্বীকার করলে পুলিশ তাদের আটক করে থানায় নিয়ে যান।

ভূক্তভোগী অনেকে এসব বখাটেদের উপযুক্ত শাস্তি দাবি করেন, অধ্যক্ষ মিজানুর রহমান বলেছেন, ছাত্রীর ইভটিজিং, শ্লীলতাহানী এবং নির্যাতনের অভিযোগের সত্যতা পেয়েছি। শুধু আজ নয়, এর আগেও এমন অভিযোগ শোনা গেছে। ছাত্রীরা নিরাপত্তার ভয়ে প্রকাশ্যে অভিযোগ করে না।

এ বিষয়ে, ফরিদগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ শহীদ হোসেন বলেছেন, আমরা খবর পেয়ে পুলিশ পাঠিয়ে তিনজনকে আটক করেছি। আইনী ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :